অতিথি পাখি অনুচ্ছেদ রচনা

পাখি

হাজার হাজার মাইল পথ পাড়ি দিয়ে প্রতিবছর শীতকালে পৃথিবীর বিভিন্ন তীব্র শীতপ্রধান অঞ্চল থেকে অতিথি পাখি এদেশে আসে আশ্রয়ের সন্ধানে। এসব পাখি একদিকে যেমন আমাদের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যকে বর্ধিত করে অন্যদিকে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আমরা যেমন অতিথিদের সঙ্গে সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণ করি তেমনি এ পাখিগুলো আমাদের অতিথি বলে এদের সাথে আমাদের সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণ করা উচিত।  কিন্তু এক শ্রেণীর অসাধু পক্ষী মাংস লোভী লোক এবং ব্যবসায়ী নিজেদের ক্ষুদ্র স্বার্থ সিদ্ধির জন্য এসব অতিথি পাখি শিকার করে খায় এবং বিক্রি করে। ভাবতে অবাক লাগে যে হাজার হাজার মাইল পথ পাড়ি দিয়ে যে পাখিরা আসে অস্তিত্ব রক্ষার জন্য, এরাই এদের অস্তিত্বকে বিসর্জন দেয় হৃদয়হীন লোকদের খাবার টেবিলে।  অথচ মানুষের কর্তব্য অতিথি পাখিদের অভ্যর্থনা জানানো। এদের জন্য অভয়ারণ্য তৈরি করা। এদের আশ্রয়ের সময়টুকুকে নিরাপদ ও আনন্দময় করে তোলা। এজন্য মানুষকে তার লোভ এবং রসনা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। বিচিত্র ধরনের সব পাখি যেন কারো লালসার শিকার হতে না পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষার জন্য মানুষের প্রয়োজন আরো সজাগ এবং সচেতন হওয়া। পাখিরা পাখনায় ভর করে যে সুদূরের গন্ধ নিয়ে আসে তাকে স্তব্ধ করার অধিকার কোন সভ্য মানুষের নেই। তাই শীতের অতিথি পাখিদের সংরক্ষণের ব্যাপারে আমাদের সচেতন হতে হবে। একই সঙ্গে শিকারীদের দমন করতে সরকারের আশু পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।

11+

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *