অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে, তব ঘৃণা তারে যেন তৃণসম দহে

অন্যায়

সুন্দর সমাজ গঠনের প্রয়াসী মানুষ ব্যক্তি ও সমাজ জীবনের বৃহত্তর কল্যাণ ও সামাজিক শান্তি – শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য গড়ে তুলেছে অনেক মান্য অনুশাসন ও অনুসরণীয় ন্যায় – নীতি । কিন্তু সমাজ জীবনে এমন কিছু লােক থাকে যারা এসব অনুসরণ ও অনুসরণীয় ন্যায় – নীতি মান্য বা অনুসরণ করতে চায় না । তারা অন্যকে উপীড়ন করে , অন্যের অধিকারে অন্যায় হস্থক্ষেপ করে থাকে । উচ্ছৃঙ্খল আচরণে সামাজিক শৃঙ্খলাকে নস্যাত্ করে , সামাজিক স্বার্থবিরােধী অন্যায় ও অবৈধ কর্মতৎপরতায় লিপ্ত হয় । এরা সমাজের চোখে অন্যায়কারী ও আইনের চোখে অপরাধী বলে বিবেচিত হয় । এদের অপরাধ অবশ্যই দন্ডনীয় । বিবেকবান মানুষ হিসাবে অন্যায়ের প্রতিবাদ করার চেতনার অধিকারী হলেও অনেক সময় মানুষ নানা কারণে দিনের পর দিন অন্যায়কে সহ্য করেন । সরাসরি অন্যায় না করলেও এটি অন্যায়কে সহযােগিতা করার নামান্তর । এতে করে অন্যায়কারী আরাে প্রশ্রয় পায় । বস্তুত অন্যায়প্রবণ মানুষ সংখ্যায় কম হলেও এবং সংখ্যা গরিষ্ঠ মানুষ অন্যায়ের প্রতিবাদ করা সঙ্গত মনে করলেও অনেকে বিপদের ঝুঁকি থাকায় নীরবে অন্যায় সহ্য করে চলে । পরিভােগ প্রবণ , সুখকাতর ও আত্মকেন্দ্রিক অনেক মানুষ অন্যায়ের প্রতিবাদ করার চেয়ে প্রভাব প্রতিপত্তিশালী অন্যায়কারীর সঙ্গে আপােস বা আঁতাত করে চলাই পছন্দ করে । অনেকে সমস্থ ঝুট ঝামেলার মধ্যে সব বুঝেও নির্বিকার নিশ্চেতন থাকার ভান করে অন্যাকে প্রশ্রয় দেয় । অন্যের | বিরুদ্ধে প্রতিবাদহীন এই নির্লিপ্ততা , এই পলায়ন প্ৰবণ মনােভাব প্রকারান্তরে অন্যায়কারীকে আরাে বেপরােয়া করে তােলে । তার স্বেচ্ছাচারিতার মাত্রা হয়ে ওঠে আকাশচুম্বী । দিনে দিনে বাড়ে তার শক্তি সাহস । শাসনযন্ত্রেও সে প্রভাব বিস্তার করতে সক্ষম হয় এবং শেষ পর্যন্ত দুর্বিনীত অন্যায়কারী সবার কাছ হতে সমীহ পেতে ব্যস্ত হয়ে ওঠে । আর ন্যায় অন্যায় বিবেচনা বােধ সত্বেও সাধারণ মানুষ মেরুদন্ডহীনের মতাে বিষ্ময়কর নির্লিপ্তভায় মুখ বুঝে থাকে , প্রতিবাদে সােচ্চার হতে ভয় পায় । অন্যায় সহ্য করার অপরিণামদর্শী প্রবণতার কারণে আজ সমাজ জীবনে অপরাধিদের দৌরাত্ম বাড়ছে । স্পষ্টই প্রতিয়মান হচ্ছে অন্যায়কারীর মতাে অন্যায় সহ্যকারীও সমান ভাবে অপরাধী । এ সচেতনতা নিয়ে সকল বিবেকবান মানুষকে আজ সক্রিয় ও সম্মিলিতভাবে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে । এ ভূমিকা পালনে ব্যর্থ হলে আমরা যে কেবল বিবেকের কাছে ও সমাজের কাছে দায়ী থাকব তাই নয়, বিশ্ব বিধাতার কাছেও অপরাধি বলে গণ্য হব।

1+

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *